শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৯:০৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ঢাকায় সর্বস্তরের জনগণের প্রতি আইনানুযায়ী রাজস্ব প্রদানের আহ্বান রাষ্ট্রপতির বাঙালিকে স্বাধীনতা এনে দিয়ে জাতির পিতা অমর হয়ে রয়েছেন : তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী শিক্ষাক্রম নিয়ে উদ্দেশ্যমূলকভাবে মিথ্যাচার করা হচ্ছে : শিক্ষামন্ত্রী বিএনপির নেতৃত্বে মূল্যবোধ নৈতিকতা ও সততার ঘাটতি আছে : হানিফ রাশিয়ার অর্থ জব্দ করে ইউক্রেনকে দিতে অনুমতি যুক্তরাষ্ট্রের বিএনপি মহাসচিব মিথ্যাচার করেছেন : ওবায়দুল কাদের সাভারে সড়ক দুর্ঘটনায় সেনা সদস্য নিহত বর্তমান সরকারের সময় শিক্ষা খাতে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে : প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর দেশে সার, বীজসহ কৃষি উপকরণের কোন দাম বাড়ান হবে না : কৃষিমন্ত্রী

পুলিশের ধাওয়া খেয়ে নিখোঁজ, ৩ দিন পর নদীতে ভাসল লাশ

সিএনআই নিউজ
  • আপডেট সময় : 5:06 pm, রবিবার, ২৭ নভেম্বর, ২০২২

ভোলার দৌলতখানে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে নদীতে ডুবে নিখোঁজের তিন দিন পর নোমান (২৭) নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশ উদ্ধারের সময় তার মুখমণ্ডল থেঁতলানো নাক ফাটা দেখা গেছে। রবিবার (২৭ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে স্থানীয়রা পাতার খাল মাছ ঘাট এলাকায় ভাসমান লাশ দেখতে পায়। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

এ দিকে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় গত শুক্রবার রাতে লালমোহন সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল ইসলামকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

এ ছাড়াও ঘটনার সাথে জড়িত প্রথমে দৌলতখান থানার গাড়িচালক রাসেল ও সজীব নামে দুই কনস্টেবলকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এর একদিন পর দৌলতখান থানার উপপরিদর্শক (এসআই) স্বরূপ কান্তি পাল ও সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) সোহেল রানাকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়।

দৌলতখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাকির হোসেন জানান, স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। পরে নোমানের লাশ শনাক্ত করে তার পরিবার। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) দুপুরে দৌলতখান উপজেলার পাতার খাল মাছ ঘাট সংলগ্ন মেঘনা নদীর তীরবর্তী এলাকায় নোমানসহ কয়েকজন জুয়া খেলছিলেন। এ সময় এসআই স্বরূপ কান্তি পাল ও এএসআই সোহেল রানাসহ চার পুলিশ সদস্য তাদের জুয়ার আসরে ধাওয়া করে। পুলিশের ধাওয়া খেয়ে নোমানসহ কয়েকজন মেঘনা নদীতে পড়ে যায়। তাদের মধ্যে সবাই সাঁতরে তীরে ভিড়তে পারলেও নোমান আসতে পারেনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নোমান নদীতে পড়ে যাওয়ার পর পুলিশ তাকে উদ্ধার না করে তাকে লক্ষ্য করে ইট নিক্ষেপ করতে থাকে। তাদের ধারণা পুলিশের ইটের আঘাতে নোমান নদী থেকে সাঁতরে তীরে ওঠে আসতে পারেনি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই রকম আরো জনপ্রিয় সংবাদ
© All rights reserved © 2017 Cninews24.Com
Design & Development BY Hostitbd.Com