মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০৭:২১ পূর্বাহ্ন

তালের শাসে স্বস্তি কাজিপুরে! 

টি এম কামাল, কাজিপুর থেকে :
  • আপডেট সময় : 9:52 pm, শনিবার, ১১ জুন, ২০২২
  • ৪৩ বার পঠিত

তালের শাস মুখে দিলেই মেলে প্রশান্তি, গরমের মাঝেও নেওয়া যায় স্বস্তির নিঃশ্বাস। তাই মৌসুমি এই ফলের শাসের বিক্রি বেড়েছে সিরাজগঞ্জের কাজিপুরে। উপজেলার সকল মোড়ে মোড়ে এখন তালের শাস বিক্রি হচ্ছে। পথ চলতে গিয়ে চরম গরমে ক্লান্ত হয়ে তালের শাস কিনে খাচ্ছেন সাধারণ ভোক্তারা।
কাজিপুরের আলমপু্র, মেঘাই, সোনামুখী, শিমুলদাইড়, চালিতাডাঙ্গা, ঢেকুরিয়া, হরিনাথপুর, নাটুয়ারপাড়া, তেকানী, নিশ্চিন্তপুর, চরগিরিশ, মাইজবাড়ী, শুভগাছা, সিমান্তবাজারে তালের শাস বিক্রি হচ্ছে। প্রতিটি তালের শাস ৫ থেকে ১০টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। একটি তাল থেকে তিনটি বা দুটি করে শাস পাওয়া যায়। গ্ৰাম পর্যায়েও বিক্রি হচ্ছে এই তালের শাস। সোনামুখী বাজারে ও সিমান্তবাজারেবিক্রি বেড়েছে তাল শাসের। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গেটে তালের শাস বিক্রি করছেন বিক্রেতারা। অনেকেই নিজে খাওয়ার পাশাপাশি পরিবারের জন্য তালের শাস নিয়ে যাচ্ছেন। শুক্রবার ও শনিবার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা যায়।
আফজাল হোসেন মেমোরিয়াল ডিগ্ৰী কলেজ গেটে তাল শাস বিক্রেতা আলমগীর হোসেন জানান, প্রতি বছরই এ সময়ে তালের শাস বিক্রি করে থাকেন তিনি। বিভিন্ন গ্রামের গাছ থেকে তাল সংগ্রহ করে বৈশাখ ও জৈষ্ঠ্য এ দুই মাস তালের শাস বিক্রি করেন। প্রতিদিন প্রায় ২শ থেকে ৩শ শাঁস বিক্রি করে থাকেন। একটি শাস ৫-১০টাকা দরে বিক্রি করেন। এতে সব খরচ বাদ দিয়ে দৈনিক ৪শ থেকে ৫শ টাকা লাভ হয়।
চালিতাডাঙ্গা গ্ৰামের ফজলুল হক নামের এক ক্রেতা বলেন, ‘গরমে একটু প্রশান্তি পেতে তালের শাস কিনেছি। বাড়িতেও সবার জন্য নিয়ে যাচ্ছি। গরমে তালের শাস বেশ আরামদায়ক। ’মমতা খাতুন নামের এক ক্রেতা বলেন, মেয়ের বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছি। নাতি-নাতনিদের জন্য বাইরের ভাজা পোঁড়া না নিয়ে তালের শাস নিয়ে যাচ্ছি। এতে গরমে কিছুটা ভালো লাগবে।’
আলমপু্র চৌরাস্তায় তাল শাস ক্রেতা মামুন মাষ্টার জানান, তিনি কয়েক দিন ধরেই তাল শাস ক্রয় করে পরিবারের জন্য নিয়ে যাচ্ছেন। তাল শাস খেলে এই গরমে তাদের শরীর শীতল থাকছে। সে কারণে পরিবারের জন্যও তিনি তাল শাস কিনে নিচ্ছেন।’
পল্লী চিকিৎসক (রেষ্ট মেডিকেল হল) আব্দুস ছাত্তার ত্তার জানান, তালের শাসে প্রচুর পরিমাণে খনিজ লবণ ও পানি রয়েছে। গরমে শরীরের কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে তালের শাস খুবই উপকারী। তবে অতিরিক্ত পরিমানে তালের শাস খেলে পেটের সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। # 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

এই রকম আরো জনপ্রিয় সংবাদ
© All rights reserved © 2017 Cninews24.Com
Design & Development BY Hostitbd.Com