,
প্রচ্ছদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | সারাদেশ | রাজনীতি | বিনোদন | খেলাধুলা | ফিচার | অপরাধ | অর্থনীতি | ধর্ম | তথ্য প্রযুক্তি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | স্বাস্থ্য | নারী ও শিশু | সাক্ষাতকার

সাভারে স্বদেশ লিমিটেডের বিরুদ্ধে অবৈধ ডিপোজিটের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার:

ঢাকার সাভারে সমবায় সমিতির রেজিস্ট্রেশন নিয়ে অবৈধ ব্যাংকিং ও লেনদেনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। স্বদেশ লিমিটেড নামে প্রতিষ্ঠানের মালিক ইসলামী শরীয়ার কথা বলে ফিক্সড ডিপোজিটের নামে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন ভূক্তভোগীরা। এ ব্যাপারে সমবায় অধিদপ্তর আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।
জানাগেছে, সাভারের রাজ ফুলবাড়িয়ার মো: ওবায়দুল্লাহ নিজেকে একটি কলেজের প্রভাষক পরিচয় দিলেও ইসলামী শরীয়ার নামে মূলত করেন সূদের ব্যবসা। তিনি নিজেদের পরিবারের লোকজনকে নিয়ে স্বদেশ লিমিটেড নামে একটি সমবায় সমিতির রেজিস্ট্রেশন গ্রহণ করেন। এরপর থেকে ফিক্সড ডিপোজিটের নামে ব্যবসায়ীদের মাসে একলাখ টাকায় দুই হাজার টাকা করে সুদ দেয়ার লোভ দেখিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা অবৈধভাবে আমানত রাখছেন। এছাড়্ওা তিনি প্রতিদিন ব্যবসায়ীদের কাছে থেকে ফিক্সড ডিপোজিটের নামে অর্থ সংগ্রহ করছেন। এসব অর্থ কোন উন্নয়নমূলক কাজে ব্যবহার না করে তিনি তা ঋণ হিসেবে সাধারণ জনগনের কাছে দিয়ে অধিক মুনাফা অর্জন করছেন।
সাভারের রাজ্জাক প্লাজা, অন্ধ কল্যাণ মার্কেটসহ বিভিন্ন বিপনী বিতানের ব্যবসায়ীরা জানান, ওবায়দুল্লাহর কাছে তারা মাসে একলক্ষ টাকা জমা রাখলে দুই হাজার টাকা লাভ দেবেন, এই শর্তে টাকা গচ্ছিত রাখছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, রাজ্জাক প্লাজার তিন তলায় মোবাইল সার্ভিসিং সেন্টারের ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ফিক্সড ডিপোজিটের বইতে স্বাক্ষর করে প্রতিদিনই টাকা আদায় করছেন স্বদেশ লিমিটেডের মাঠকর্মী ইমন। তিনি ব্যবসায়ীদের ডিপিএস বা ফিক্সড ডিপোজিটের টাকা সঠিকভাবে ফেরত না দেয়ায় বিভিন্ন সময় তর্কেও জড়িয়ে পরছেন।
ব্যবসায়ী ইরন জাবের বলেন, স্বদেশের এই অবৈধ লেনদেনের প্রতিবাদ করায় হুমকী দিয়ে বড় বড় কথা বলে গেছেন ওবায়দুল্লার কর্মীরা। তারা নাকি অনেক ক্ষমতার মালিক। অনেক কর্মকর্তা ও সাংবাদিক তাদের পেছনে খুঁটি হিসেবে রয়েছেন।
ফুলবাড়িয়া এলাকার সজিব জানান, এর আগে বিভিন্ন মিডিয়াতে সংবাদ পরিবেশিত হওয়ার প্রতিক্রিয়া হিসেবে ওবায়দুল্লাহ বলেন, শত শত সংবাদ এলেও তার কিছুই হবেনা।
সাভারের কয়েকজন সংবাদ কর্মী জানান, রাজ ফুলবাড়িয়া এলাকায় স্বদেশ লিমিটেডের অফিস ব্যাংকের আদলে গড়ে তোলা হয়েছে। সেখানে প্রতিদিন ঋণ দেয়া আর টাকা আদায় করা ছাড়া অন্য কোন কার্যক্রম চোখে পরেনি। সমবায় অধিদপ্তর থেকে নোটিশ পাওয়ার পরেও তিনি বহাল তবিয়তে চালিয়ে যাচ্ছেন তার কার্যক্রম।
ডিপিএস করা বা ফিক্সড ডিপোজিট নেয়ার কথা স্বীকার করে স্বদেশ লিমিটেডের কথিত মালিক মো: ওবায়দুল্লাহ জানান, সমবায় অধিদপ্তরের এক কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে এবং তার পরামর্শে স্বদেশ লিমিটেড স্থাপন করেন।
ওবায়দুল্লাহ আরো জানান, তিনি মানিকগঞ্জের একজন পীরের মুরিদ। তাই ইসলামী শরীয়া মোতাবেক ফিক্সড ডিপোজিট চালু করেছেন।
অন্যদিকে, সমবায় অধিদপ্তরের বার্ষিক অডিট রিপোর্টের সাথে সমিতির ব্যাংক একাউন্টের কোন মিল খুঁজে পাওয়া যায়নি। ওবায়দুল্লার ব্যক্তিগত এবং সমিতির ব্যাংক একাউন্টে এত টাকার উৎস কোথায় তার কোন সঠিক উত্তর তিনি দিতে পারেননি।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্বদেশ লিমিটেডের একজন কর্মকর্তা জানান, ফিক্সড ডিপোজিটের নামে ওবায়দুল্লাহ ব্যবসায়ীদের লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়ে নামে ও বেনামে ব্যাংক একাউন্ট করে তা জমা রাখছেন। নিজের কাছেও তিনি প্রচুর পরিমানে টাকা গচ্ছিত রাখেন।
সাভার উপজেলা সমবায় অফিসার খোকন চন্দ্র রায় জানান, স্বদেশ লিমিটেডের নামে এ ধরনের অভিযোগ পাওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে লিখিত নোটিশ প্রদান করা হয়েছে।
সমবায় অধিদপ্তর স্বদেশ লিমিটেডের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন বলেও জানান সমবায় অধিদপ্তরের একাধিক উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা।
সমবায় অধিদপ্তরের ডেপুটি রেজিস্টার মো: মিজানুর রহমান বলেন, এসব প্রতিষ্ঠান হায় হায় কোম্পানী। সংসদীয় কমিটির কাছে এমন শত অভিযোগ উথ্থাপন করা হয়েছে। এদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। সাধারণ জনগণকে স্বদেশ লিমিটেডের মত সমবায় সমিতির কাছে টাকা গচ্ছিত না রাখার পরামর্শ দেন তিনি।
বলা আছে, সমবায় সমিতির রেজিস্টেশন নিয়ে শুধুমাত্র রেজিস্ট্রি সদস্যের বাইরে লেনদেন করা বেআইনী। এপরেও বিভিন্ন সমবায় সমিতি নিজেদের গন্ডি পেরিয়ে শুধু সুদ ব্যবসায় লিপ্ত রয়েছেন।
স্বদেশ লিমিটেডের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মিডিয়ায় সংবাদ পরিবেশিত হলে সমবায় অধিদপ্তর ও বাংলাদেশ ব্যাংকের আমলে আসে বিষয়টি। বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমতি ছাড়া এ ধরনের লেনদেন করলে তা বেআইনী বলে বিবেচিত হয়।
পরবর্তী কিস্তিতে স্বদেশ লিমিটেডের কথিত মালিক ওবায়দুল্লাহর অবৈধ লেনদেনের ভিডিওসহ আরো বিস্তারিত সংবাদ জানতে নিয়মিত ভিজিট করুন আমাদের নিউজ পোর্টাল আর চোখ রাখুন আমাদের পত্রিকায়। চলবে………..

Leave a Reply

VIDEO_EDITING_AD_CNI_NEWS
প্রধান সম্পাদক : তোফায়েল হোসেন তোফাসানি
বার্তা সম্পাদক : রোমানা রুমি, সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: সি-১১/১০, ছায়াবীথি, সাভার, ঢাকা-১৩৪০
ফোন ও ফ্যাক্স : ০২-৭৭৪১৯৭১, মোবাইল ফোন : ০১৭১১০৭০৯৩১
ই-মেইল : cninewsdesk24@gmail.com, cninews10@gmail.com
ঢাকা অফিস : বিএনএস সেন্টার (৯তলা), প্লট-৮৭, সেক্টর-০৭, উত্তরা, ঢাকা-১২৩০
Design & Developed BY PopularITLimited