,
প্রচ্ছদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | সারাদেশ | রাজনীতি | বিনোদন | খেলাধুলা | ফিচার | অপরাধ | অর্থনীতি | ধর্ম | তথ্য প্রযুক্তি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | স্বাস্থ্য | নারী ও শিশু | সাক্ষাতকার

ইউআরসি ইন্সট্রাকটরদের পদোন্নতি নেই, সরকারি হস্তক্ষেপ কামনা

শেখ সালমা

ইউআরসি ইন্সট্রাকটরগণ একই পদে চাকরী করে আসলেও তাদের পদোন্নতির কোন সম্ভাবনা না থাকায় হতাশা বিরাজ করছে শিক্ষাখাতের গুরুত্বপূর্ণ এ খাতটিতে। এ ব্যাপারে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন ভুক্তভোগীরা।

প্রায় ২২/২৩ বছর যাবত একই পদে চাকুরী করেও পদোন্নতি পাচ্ছেন না উপজেলা রিসোর্স সেন্টার এর ইন্সট্রাক্টরগণ। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরাধীন ইউআরসি ইন্সট্রাক্টর প্রতিটি উপজেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক ও সহকারি শিক্ষকদের স্বল্পমেয়াদী প্রশিক্ষণ প্রদান ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করার জন্য শিক্ষকগণ কিভাবে শ্রেণীতে শিখন শেখানো কার্যাবলী পরিচালনা করবেন তা মেন্টর হিসাবে কাজ করেন। তাছাড়া শিক্ষকদের সবল দূর্বল বা উন্নয়নের ক্ষেত্র চিহ্নিত করে ডাটাবেজ তৈরী করেন এবং প্রয়োজন অনুসারে প্রশিক্ষণ ও ফলাবর্তন প্রদান করেন। চাহিদাভিত্তিক সাব-ক্লাস্টার প্রশিক্ষণ ম্যানুয়াল প্রণয়ন, পরিদর্শনসহ উপজেলা শিক্ষা অফিস কিংবা উপজেলার অন্য কোন দপ্তরের প্রশিক্ষণে প্রশিক্ষক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। বৈশ্বিক মহামারি করোনাকালীন এই সময়ে প্রায় প্রত্যেকটি উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নেতৃত্বে নিরলস ভাবে দরিদ্র জনগনের সেবা করে অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং কেউ কেউ মহান আল্লাহর ইচ্ছায় পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে পরিবার স্বজনদের কাঁদিয়ে চলে গেছেন না ফেরার দেশে। করোনার ভয়াল থাবায় যখন দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ তখন আইসিটিতে পারদর্শী ইন্সট্রাক্টরগণ অনলাইন ক্লাশ পরিচালনার জন্য উপজেলার শিক্ষকদের অনুপ্রানিত ও সহযোগীতা করছেন। “মানসম্মত শিক্ষা শেখ হাসিনার দীক্ষা” এই শ্লোগান কে সামনে রেখে ইউআরসি ইন্সট্রাক্টরগণ প্রাথমিক শিক্ষাকে এগিয়ে নেয়ার জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তবে দুঃখের বিষয় এইযে, বর্তমান সরকারের আমলে যেখানে সকলেরই পদোন্নতি হচ্ছে অর্থাৎ সহকারি শিক্ষক, প্রধান শিক্ষক,এইউইও/এইটিও, টিইও, এডিপিইও , ডিপিইও, ইউআরসি সহকারি ইন্সট্রাক্টর, পিটিআই ইন্সট্রাক্টর, সহকারি সুপারিনটেনডেন্ট ও সুপারিনটেনডেন্টগণ ফলে তাঁদের মধ্যে চরম হতাশা ও ক্ষোভের সৃষ্টি হচ্ছে। দীর্ঘদিন প্রচেষ্টার মাধ্যমে সরকারের স্বদিচ্ছায় পিটিআইতে ৬৬ টি সহকারি সুপারিনটেডেন্ট পদ সৃজন ও পদায়নের অনুমোদন পাওয়া যায়। পিটিআই ইন্সট্রাক্টরগণ দীর্ঘদিন যাবত কলেজ হিসাবে অধিভুক্ত হওয়ার আন্দোলন করলেও উপজেলা পর্যায়ে যেহেতু পিটিআই সুপারিনটেনডেন্ট এর নিয়ন্ত্রনাধীন ইউআরসি প্রতিষ্ঠান। তাই উক্ত ইউআরসিকে সার্বক্ষনিক তত্ববধান করার জন্য সুপারিনটেনডেন্ট এর সহযোগী হিসাবে একজন সহকারি সুপারিনটেনডেন্ট প্রয়োজন। উল্লেখ্য পিটিআই এর সার্বিক কার্যক্রম এ সুপারিনডেন্টকে সহযোগীতার জন্য একজন সহকারি সুপারিনটেনডেন্ট পিটিআই ইন্সট্রাক্টর হতে পদোন্নতি/চলতিদায়িত্ব প্রাপ্ত বর্তমানে কর্মরত আছেন। ইউআরসি ইন্সট্রাক্টরগণ নব সৃষ্ট পদে সহকারি সুপারিনটেনডেন্ট পদে পদোন্নতি বা চলতি দায়িত্ব পেলে একদিকে যেমন ইউআরসি ইন্সট্রাক্টরদের হতাশা দূর হবে তদূপরি মাঠ পর্যায়ে কাজের গতিশীলতা বৃদ্ধিপাবে। পিটিআইতে এখন ডিপিএড/সিইনএড ডাবলশিফট চলমান থাকায় সেখানে অন্যকোন প্রশিক্ষণের পিটিআই ইন্সট্রাক্টদের সংক্ষিপ্ত প্রশিক্ষণে যুক্ত রাখা সমীচিন নয়। ইউআরসিতে আইসিটি সহ সকল সংক্ষিপ্ত প্রশিক্ষণ বাস্তবায়নের দায়িত্ব দিলে একদিকে পিটিআইতে যেমন ডিপিএড প্রশিক্ষণ সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন হবে অপরদিকে ইউআরসিকে সারাবছর প্রশিক্ষণে ব্যস্ত রাখা সম্ভব হবে।উপরোন্তু উপজেলা শিক্ষক/ শিক্ষিকা গণ কোন সংক্ষিপ্ত প্রশিক্ষণের জন্য পিটিআইতে যেতে হবেনা,ফলে নিজ উপজেলায় প্রশিক্ষণ গ্রহণের কারনে সরকারের ব্যয়ও কমে যাবে। ইউআরসির অনেক ইন্সট্রাক্টরগণ দেশের সব্বোর্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা গবেষণা ইনষ্টিটিউট থেকে শিক্ষায় অনার্স সহ মাষ্টার্স ডিগ্রীধারী এবং পরবর্তী সময়ে বর্হিবিশ্বথেকে উচ্চতর ডিগ্রী অর্জন করেছেন তাদেরকে যদি নেপ এ সহকারি বিশেষজ্ঞ, এনসিটিবি তে সরকারের চাহিদা মত কোন পদে সংযুক্তি দেওয়া হয় তা হলে দেশের প্রাথমিক শিক্ষায় আরো বেশী অবদান রাখতে সক্ষম হবেন । এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ইউআরসি ইন্সট্রাক্টর সমিতির সভাপতি জনাবতরিকুল ইসলাম সেগুন বলেন, “ইন্সট্রাক্টর পদে প্রায় ২২ বছর যাবৎ চাকুরী করছি। কোন সহকারি শিক্ষক কিংবা কোন স্টাফ যখন বলেন প্রাথমিক বিভাগের সকলেরই পদোন্নতি হলেও আপনাদের কেন হচ্ছেনা? তখন নিজেকে খুব ছোট মনে হয়। আমার সহকারি ইন্সট্রাক্টর যখন অন্য উপজেলায় ইউআরসি ইন্সট্রাক্টর পদ চলতি দায়িত্ব পান তখন তার জন্য ভাললাগলেও নিজের জন্য কষ্ট পাই। আশায় আছি কবে এমন দূর্বিসহ যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাব। “জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকীতে প্রাথমিক শিক্ষা ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করার জন্য প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী, মাননীয় সিনিয়র সচিব, মাননীয় অতিরিক্ত সচিব ও মহা পরিচালক প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর মহোদয় সহ অন্যান্য উর্দ্ধতন কর্মকর্তাগণ নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তাদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ইউআরসি ইন্সট্রাক্টরদের পদোন্নতি/চলতিদায়িত্বপ্রদান/সংযুক্তি সহ ইউআরসিতে বছর ব্যাপী প্রশিক্ষণ প্রদান এবং শূণ্য পদে জনবল নিয়োগের দ্বারা মাঠ পর্যায়ের মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষাআরো একধাপ এগিয়ে নেয়া সম্ভব হবে”।

Leave a Reply

VIDEO_EDITING_AD_CNI_NEWS
প্রধান সম্পাদক : তোফায়েল হোসেন তোফাসানি
বার্তা সম্পাদক : রোমানা রুমি, সম্পাদকীয়, বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়: সি-১১/১০, ছায়াবীথি, সাভার, ঢাকা-১৩৪০
ফোন ও ফ্যাক্স : ০২-৭৭৪১৯৭১, মোবাইল ফোন : ০১৭১১০৭০৯৩১
ই-মেইল : cninewsdesk24@gmail.com, cninews10@gmail.com
ঢাকা অফিস : ২১ দক্ষিনখান (শহীদ লতিফ রোড), ঢাকা-১২৩০
Design & Developed BY PopularITLimited