,
প্রচ্ছদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | সারাদেশ | রাজনীতি | বিনোদন | খেলাধুলা | ফিচার | অপরাধ | অর্থনীতি | ধর্ম | তথ্য প্রযুক্তি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | স্বাস্থ্য | নারী ও শিশু | সাক্ষাতকার

চোখে অন্ধকার দেখছেন পাটকল শ্রমিকেরা

অনলাইন ডেস্কঃ

ক্রমাগত লোকসানের কারণে গত ২৫ জুন খুলনা অঞ্চলের ৯টিসহ দেশের রাষ্ট্রায়ত্ত ২৫টি পাটকল বন্ধ ঘোষণার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। গত ২ জুন বৃহস্পতিবার পাটকল বন্ধসহ গোল্ডেন হ্যান্ডশেকের আওতায় শ্রমিকদের অবসায়নের প্রজ্ঞাপন মিলে মিলে নোটিশ বোর্ডে টানিয়ে দেওয়া হয়। হঠাৎ মিল বন্ধের খবর শুনে অন্য এলাকার শ্রমিকদের মতো খুলনা অঞ্চলের পাটকল শ্রমিকেরাও হতবাক হয়ে পড়েন। চাকরি হারিয়ে এখন তারা চোখের সামনে শুধুই অন্ধকার দেখছেন।

গতকাল রবিবার নগরীর খালিশপুর শিল্পাঞ্চল ঘুরে দেখা যায়, রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলোতে শ্রমিকদের পদচারণা নেই। থেমে গেছে কোলাহল। মিলগেটগুলোর সামনে বসে অলস সময় কাটাচ্ছেন শ্রমিকেরা। তাদের চোখেমুখে চাকরি হারানোর বেদনা। সদ্য অবসরে যাওয়া শ্রমিকেরা এখন তাদের পাওনা টাকা পাওয়ার অপেক্ষায় দিন গুনছেন।

অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক জালাল মিয়া বলেন, ‘হঠাৎ করেই সরকার মিল বন্ধ করে দিল। তবে ঘোষণা দিয়েছে, শ্রমিকদের মজুরি, গ্র্যাচুইটি ও প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা দ্রুত পরিশোধ করা হবে। এখন টাকা পেলেই খুশি।’ একই মিলের শ্রমিক আব্দুল করিম বলেন, ‘কবে টাকা পাব জানি না। এখন কাছে কোনো টাকা নেই। পরিবার-পরিজন নিয়ে যে বাড়িতে যাব, তা-ও যেতে পারছি না।’

২০১৪ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর প্লাটিনাম জুট মিলের নিরাপত্তা বিভাগের কর্মী আব্দুল জলিল অবসরে গেলেও বেতন আর গ্র্যাচুইটির টাকা না পেয়ে হতাশ হয়ে পড়েছেন। তিনি ক্ষুব্ধ কণ্ঠে বলেন, ‘খুব কষ্টে দিন যাচ্ছে। আজও মজুরি কমিশন আর গ্র্যাচুইটির টাকা পাইনি।’ অপর অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক আলমগীর হোসেন বলেন, ‘সরকার বলছে, আবার মিল চালু হবে। কিন্তু মিল চালুর পর আমাদের নেওয়া হবে কি না, জানি না।’

মিলের শ্রমিকেরা বলেন, ‘আমাদের রক্ত ঝরানো টাকা যাতে সঠিকভাবে পেতে পারি, এখন সরকারের কাছে আমাদের সেই দাবি।’ তারা বলেন, ‘১২ থেকে ১৫ সপ্তাহ পর্যন্ত মজুরি বকেয়া রয়েছে। বকেয়া মজুরি না পেলে পরিবার-পরিজন নিয়ে অনাহারে থাকতে হবে। এখন কীভাবে চলব, ছেলেমেয়েদের মুখে কীভাবে খাবার তুলে দেব? এখন মৃত্যু ছাড়া কোনো উপায় নেই।’

প্লাটিনাম জুবিলি জুট মিলের গেটে গিয়ে দেখা যায় নাজমুল, রবিউল, রিপন, মেহেদী, জহির, বাবু, শফিকুলসহ ৮ থেকে ১০ জন হতাশ হয়ে বসে আছেন। আজ থেকে মাত্র পাঁচ দিন আগেও তারা এই মিলে অস্থায়ী শ্রমিক হিসেবে চাকরি করতেন। এখন চাকরি হারিয়ে অনিশ্চিত অবস্থায় পড়েছেন। হতাশ কণ্ঠে তারা বলেন, ‘কী করব, কোথায় যাবো তাই নিয়ে বড় দুশ্চিন্তায় আছি।’

রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল রক্ষা সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক আব্দুল হামিদ সরদার বলেন, ‘আমরা এখন অসহায়।’ এই পরিস্থিতিতে শ্রমিকদের এককালীন পাওনা পরিশোধ এবং পুনরায় মিলগুলো চালানোর জন্য দাবি জানান তিনি।

এদিকে বাংলাদেশ পাটকল করপোরেশন (বিজেএমসি) সূত্র জানায়, ২০১৩ ও ২০১৪ সাল থেকে খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত ৯টি পাটকল থেকে প্রায় ১ হাজার শ্রমিক অবসর গ্রহণ করেছেন। অবসর গ্রহণের পর দীর্ঘ ছয়-সাত বছর পেরিয়ে গেলেও তারা টাকা পাননি। ইতিমধ্যে রোগশোকে ভুগে অনেকে মারাও গেছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিজেএমসির একজন কর্মকর্তা বলেন, আমলানির্ভর না হয়ে বিজেএমসির দক্ষ জনবল দিয়ে পাটকল পরিচালনা, দৈনিক ভিত্তিতে দক্ষ শ্রমিক নিয়োগ ও অযাচিত রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ বন্ধ হলে খুলনা অঞ্চলের রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকলগুলোকে আবারও লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করা সম্ভব।

বিজেএমসির খুলনা আঞ্চলিক সমন্বয়কারী বনিজ উদ্দিন মিয়া জানান, প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ১ জুলাই থেকে পাটকলগুলোতে উৎপাদন বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সদ্য অবসরে যাওয়া খুলনা অঞ্চলের সাতটি জুট মিলের ৮ হাজার ১০০ শ্রমিক এবং আগে অবসরে যাওয়া আরো প্রায় ১ হাজার শ্রমিকের পাওনা পরিশোধের জন্য সরকারের প্রায় ৩ হাজার ৭০০ কোটি টাকা লাগতে পারে। অবসরে যাওয়া সব শ্রমিকের পাওনা যথা সময়ে পরিশোধ করা হবে। তবে খালিশপুর ও দৌলতপুর জুট মিলে দৈনিক ভিত্তিতে (অস্থায়ী শ্রমিক) কাজ করা কোনো শ্রমিক সরকারি কোনো সুবিধা পাবেন না।

খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, ইতিমধ্যে সরকার পাটকলের শ্রমিকদের পাওনা পরিশোধের জন্য ৫ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। এর ৫০ শতাংশ নগদ এবং বাকি অর্ধেক মুনাফাভিত্তিক সঞ্চপত্রের মাধ্যমে পরিশোধ করা হবে। পরবর্তী সময়ে প্রাইভেট পাবলিক পার্টনারশিপের (পিপিপি) মাধ্যমে মিলগুলো আধুনিকায়ন করে উত্পাদনমুখী করা হবে বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

VIDEO_EDITING_AD_CNI_NEWS
প্রধান সম্পাদক : তোফায়েল হোসেন তোফাসানি
বার্তা সম্পাদক : রোমানা রুমি, ৫৭, সুলতান মার্কেট (তয় তলা), দক্ষিনখান, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন ও ফ্যাক্স : ০২-৭৭৪১৯৭১, মোবাইল ফোন : ০১৭১১০৭০৯৩১
ই-মেইল : cninewsdesk24@gmail.com, cninews10@gmail.com
আঞ্চলিক অফিস : সি-১১/১৪, আমতলা মোড়, ছায়াবিথি, সোবহানবাগ, সাভার, ঢাকা।
Design & Developed BY PopularITLimited