,
প্রচ্ছদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | সারাদেশ | রাজনীতি | বিনোদন | খেলাধুলা | ফিচার | অপরাধ | অর্থনীতি | ধর্ম | তথ্য প্রযুক্তি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | স্বাস্থ্য | নারী ও শিশু | সাক্ষাতকার

ফেরি ও মহাসড়কে মানুষের ঢল, কর্মস্থলে ফিরছে মানুষ

তোফায়েল হোসেন তোফাসানি:


দেশের উত্তরাঞ্চল ও দক্ষিনাঞ্চল থেকে রাজধানীসহ সাভার, আশুলিয়া ও ধামরাইয়ের শিল্পাঞ্চলে কর্মস্থলে ফিরছে মানুষ। যে কারনে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরিতে এবং নগরবাড়ি-আরিচা নৌরুটে লঞ্চ ও ট্রলারে করে পারাপার হচ্ছে মানুষ। এসব পরিবহনে সাধারণ যাত্রীদের ভিড়ে করোনা সংক্রমনের আশংকা থাকলেও যেন উপায় নেই। কর্মস্থলে যেতে গাদাগাদি করেই পার হতে হচ্ছে লোকজনকে। এ কারণে ঢাকা-আরিচা, টাঙ্গাইল-সাভারসহ সংশ্লিষ্ট মহাসড়কে প্রচুর জনসমাগম পরিলক্ষিত হয়েছে।
শনিবার (৩০ মে) সকাল থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে চালু রয়েছে ১৮ টি ফেরি। এই ফেরিগুলোতে যেন তিলধারনের স্থান নেই। ভিড় লেগে আছে সাধারণ যাত্রীদের।
ব্যক্তিগত যানবাহনের মধ্যে ভাড়ায় চালিত মাইক্রোবাস, পিকআপভ্যান, মোটর সাইকেল, টেম্পু, অটোরিক্সা অপেক্ষমান পাটুরিয়া ঘাটে। এসব যানবাহনে চুক্তিতে অতিরিক্ত ভাড়ায় যাত্রী হচ্ছেন কর্মজীবিরা। লঞ্চ, স্পিডবোট, ট্রলার তেমনভাবে না চলায় ফেরিই এখন একমাত্র অবলম্বন। তাই গাদাগাদি করে হাজার হাজার মানুষ ফেরিতে করেই পাড়ি দিচ্ছেন নদী।
মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ফেরিঘাটের বিআইডাব্লিউটিসি সূত্র জানায়, কোনভাবেই নিয়ন্ত্রন করা যাচ্ছেনা যাত্রীদের। করোনা সংক্রমনের ভয় থাকলেও যাত্রীরা গাদাগাদি করে পার হয়ে আসছে পাটুরিয়াতে।
এদিকে, স্বল্প আয়ের মানুষেরা ভাড়ায় চালিত ব্যক্তিগত গাড়ির অতিরিক্ত ভাড়ার কারণে অবর্ণনীয় কষ্ট করে গন্তব্যে যাচ্ছেন। ব্যাগ, ছোট ছেলেমেয়ে কোলে করে হেঁটে রওয়ানা দিয়েছেন কেউ কেউ। অনেকেই সাভার, আশুলিয়া এবং ধামরাই আসতে ভাড়া করছেন অটোরিক্সা। গাদাগাদি করে ৪-৫ গুণ বেশি ভাড়ায় সিএনজি, অটো, মোটরসাইকেল, পিকআপ, ট্রাক, ছোটগাড়ি কিংবা মাইক্রোবাস ভাড়া করে গন্তব্যে রওয়ানা দিয়েছেন যাত্রীরা।
বিআইডব্লিউটিএ’র আরিচা ফেরিঘাটের ইনচার্জ নাসিম উদ্দিন জানান, ১৮টি ফেরি দিয়ে যাত্রী ও যানবাহন পার করা হচ্ছে। যাত্রীরা সামাজিক দূরত্ব বা স্বাস্থ্যবিধি কোনোটাই মানছেন না। যেন কার আগে কে ফেরিতে উঠবে এই প্রতিযোগিতায় ব্যস্ত। এছাড়া বিআইডব্লিউটিএর আওতার বাইরে থেকে ট্রলার চলার খবর পাওয়া যাচ্ছে। এসব পরিবহনে ঝুঁকি থাকে। বিভিন্ন সময় ঘটে দুর্ঘটনা। তাই এসব পরিবহন এড়িয়ে চলা উচিত বলে তিনি ব্যক্ত করেন।
সাভার হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির অফিসার ইনচার্জ আবদুল্লাহেল বাকি জানান, রাজধানীসহ সাভার ও আশুলিয়ার শিল্পাঞ্চলে কর্মজীবি মানুষের ফিরতে শুরু করেছেন। যে কারনে অন্যান্য দিনের তুলনায় গণপরিবহন বন্ধ থাকলেও মহাসড়কে অন্যান্য পরিবহনের চাপ রয়েছে। মহাসড়কে চলাচলে সামাজিক নিরাপত্তার কথা বলা হলেও মানুষ অসচেতন থাকায় তা মানছেন না কেউই। যে কারণে এভাবে করোনা সংক্রমনের আশংকা করা হচ্ছে।

Leave a Reply

VIDEO_EDITING_AD_CNI_NEWS
প্রধান সম্পাদক : তোফায়েল হোসেন তোফাসানি
বার্তা সম্পাদক : রোমানা রুমি, ৫৭, সুলতান মার্কেট (তয় তলা), দক্ষিনখান, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন ও ফ্যাক্স : ০২-৭৭৪১৯৭১, মোবাইল ফোন : ০১৭১১০৭০৯৩১
ই-মেইল : cninewsdesk24@gmail.com, cninews10@gmail.com
আঞ্চলিক অফিস : সি-১১/১৪, আমতলা মোড়, ছায়াবিথি, সোবহানবাগ, সাভার, ঢাকা।
Design & Developed BY PopularITLimited