,
প্রচ্ছদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | সারাদেশ | রাজনীতি | বিনোদন | খেলাধুলা | ফিচার | অপরাধ | অর্থনীতি | ধর্ম | তথ্য প্রযুক্তি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | স্বাস্থ্য | নারী ও শিশু | সাক্ষাতকার

করোনায় মৃতদের লাশ দাফন নিয়ে জটিলতা নিরসন জরুরী

সিএনআই নিউজ ফিচার:

করোনা সংক্রমণে কোন ব্যক্তির মৃত্যু হলে সে ব্যক্তির লাশ দাফনের ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা দিচ্ছে। দেশের বিভিন্ন এলাকায় থেকে এমন খবর পাওয়া যাচ্ছে নিত্যদিন। স্থানীয় কবরস্থান ও স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ নির্দিষ্ট করেনি বিশেষ কবরস্থান। এতে করে মৃতব্যক্তির দাফন সম্পন্ন করাও কঠিন হয়ে পড়েছে। সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফন-কাফন করা এবং ভীত না হওয়ার আহ্বান জানালেও বাস্তবে এগুলো বাস্তবায়নে কোন পদক্ষেপ আছে কিনা সেটি দেখা জরুরি হয়ে পড়েছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্তৃক গঠিত দাফন-কাফন-জানাজা কমিটি বলা হলেও বাস্তবে তা নয়। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের এ কমিটির কাছে সুরক্ষার কোন সরঞ্জামাদি দেওয়া হয়নি। ট্রেনিং বা নিবিড় প্রশিক্ষণ করানোর বিষয়টিও আমলে নেয়া হয়নি। বিশেষজ্ঞদের মতে, কাফন দাফনের কাজটি সমন্বিত ভাবে করা প্রয়োজন। যেটি স্বাস্থ্য বিভাগের করার কথা। এদিকে, ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে জারিকৃত মারকাজুল ইসলাম নামে একটি প্রতিষ্ঠানের উল্লেখ করে চিঠি দেয়া হলেও এ পর্যন্ত তাদের দেখা মেলেনি। বিভিন্ন জেলায় কথা বলে জানা গেছে, ইসলামিক ফাউন্ডেশন শুধু জানাজার দোয়ার কাজটি সম্পন্ন করতে পারে। অন্য কাজ দুটি স্বাস্থ্য বিভাগ ও প্রশাসনের সাথে মারকাজুল ইসলাম করার কথা। অানজুমান মফিদুল করোনার ক্ষেত্রে সম্পৃক্ত নয় বলে তারা জানিয়েছে। মারকাজুল ইসলাম নামে একটি প্রতিষ্ঠান কাজটি করার কথা থাকলেও তাদের কারো দেখা মেলেনি। বিষয়টি বিস্ময়কর বলেও মনে করছে সংশ্লিষ্টরা। করোনায় আক্রান্ত রোগীদের উন্নত ব্যবস্থা সম্পন্ন দেশ গুলিতে এটা সুনির্দিষ্ট সংস্থার দায়িত্বে ন্যস্ত। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্বাস্থ্যবিভাগ লাশ প্রস্তুত করে মারকাজুলের কাছে দিবে। একই সাথে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কমিটিকে খবর দিবে। মারকাজুল দাফনের স্থান নির্ধারণপূর্বক ইসলামিক ফাউন্ডশনকে সাথে নিয়ে জানাজা ও দাফন সম্পন্ন করবে। কিন্তু এখন মাঠে শুধু ইসলামিক ফাউন্ডেশনকে দায়ী করা হচ্ছে। কোন প্রশিক্ষণ বা সুরক্ষা সামগ্রী ছাড়াই সব দায় তাদের উপর দেয়া হচ্ছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ইফার জেলার প্রধান জানান বিষয়টি অসমন্বয় ছাড়া কিছুই নয়! এদিকে প্রশ্ন উঠেছে, এ বিষয়ে মারকাজুল ইসলামকে কি অব্যহতি দেয়া হয়েছে? প্রতিষ্ঠানটির জায়গায় কে বা কারা কাজ করছে? করোনা রোগে মৃত ব্যক্তির লাশ ব্যবস্থাপনা অত্যন্ত জটিল ও স্পর্শকাতর একটি বিষয়। মারজুলকে এ দায়িত্ব দেয়া হলেও তারা তা করেনি। এখন এই কাজ কারা করছে তা কি কোন কর্তৃপক্ষের জানা অাছে? এসব জানা জরুরী হয়ে পড়েছে। বিশ্বস্থ সূত্রে জানা গেছে, ইতিপূর্বে মারকাজুল ইসলামের বিষয়ে দেশের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা প্রশ্ন তুলছে। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান জঙ্গী সম্পৃক্ততার দায়ে অভিযুক্তও করেছে গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। এরকম একটি প্রতিষ্ঠানকে সংকটকালে দায়িত্ব দেয়া কতটা যুক্তিযুক্ত হয়েছে তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সূত্রে জানা গেছে, ইমাম প্রশিক্ষণের পরচালক জাল সার্টিফিকেটধারী আনিসুজ্জামান সিকদার এর যোগ সাজস্যে এটি করা হয়েছে। মুফতি শহিদুলের সাথে রয়েছে তার সখ্যতা। আর মুফতি শহিদুল ইসামের কাছ থেকে মোটা অর্থ নিয়ে এ কাজ করছেন মাওলানা মুখোশধারী এ লোক বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। জানা গেছে, ইফাতে এ পরিচালকের নেতৃত্বে স্বাধীনতা বিরোধী একটি মহল আবার সক্রিয় হয়ে উঠেছে। তারা প্রতিমন্ত্রীর নাম বিক্রি করে এসব কাজে সক্রিয় হয়ে উঠেছে। উল্লেখ, মারকাজুল ইসলামের প্রতিষ্ঠাতা হচ্ছেন মুফতী শহীদুল ইসলাম। গোয়েন্টা সংস্থাগুলোর রিপোর্টের কারণে গত কয়েক বছরের মধ্যে তিনি দেশেই আসেননি। ২০০১ সালে নড়াইল সদর আসনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অাসন থেকে পাতানো নির্বাচনে জয়ী হয়। স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর (SOP) অনুসরণ করে উপযুক্ত দায়িত্বশীল সংস্থাকে দায়িত্ব প্রদান অত্যন্ত জরুরী বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। দেশের বিভিন্ন জেলা, উপজেলায় এক্ষেত্রে সমন্বয়হীনতার কথা উঠেছে তার মূলে যেতে কাজ করার আহ্বান বিশেষজ্ঞদের।

Leave a Reply

VIDEO_EDITING_AD_CNI_NEWS
প্রধান সম্পাদক : তোফায়েল হোসেন তোফাসানি
বার্তা সম্পাদক : রোমানা রুমি, ৫৭, সুলতান মার্কেট (তয় তলা), দক্ষিনখান, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন ও ফ্যাক্স : ০২-৭৭৪১৯৭১, মোবাইল ফোন : ০১৭১১০৭০৯৩১
ই-মেইল : cninewsdesk24@gmail.com, cninews10@gmail.com
আঞ্চলিক অফিস : সি-১১/১৪, আমতলা মোড়, ছায়াবিথি, সোবহানবাগ, সাভার, ঢাকা।
Design & Developed BY PopularITLimited