,
প্রচ্ছদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | সারাদেশ | রাজনীতি | বিনোদন | খেলাধুলা | ফিচার | অপরাধ | অর্থনীতি | ধর্ম | তথ্য প্রযুক্তি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | স্বাস্থ্য | নারী ও শিশু | সাক্ষাতকার

ঢাকার পথে মানুষের ঢল

ছবিটি ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ফুলবাড়িয়া থেকে তোলা

রোমানা রুমি:

গার্মেন্টস ফ্যাক্টরী বন্ধ ছিল। তাই সবাই চলে গেছে যার যার গ্রামে। আগামীকাল থেকে গার্মেন্ট ফ্যাক্টরী খোলার কথা। তাই গ্রামে চলে যাওয়া এসব লক্ষ লক্ষ শ্রমিক আসছে ঢাকার দিকে। ঢাকা-আরিচা, ময়মনসিংহ-ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন মহাসড়কে তাই মানুষের ঢল। এ যেন মানুষের বিশাল মিছিল মহাসড়কে।

দেখা গেছে, ঢাকা-আরিচা, টাঙ্গাইল-ঢাকা, ময়মনসিংহ-ঢাকা ও চট্টগ্রাম-ঢাকা মহাসড়কে আজ ছিল পোশাক শ্রমিকদের দির্ঘ লাইন। এরা সবাই উত্তরবঙ্গ, দক্ষিণবঙ্গ, মংমনসিংহ বিভাগ ও চট্টগ্রাম বিভাগের বিভিন্ন অঞ্চলের গার্মেন্টস কর্মী যারা সম্প্রতি করোনা পরিস্থিতিতে ছুটিতে চলে যায় বাড়িতে। আগামীকাল (রবিবার) গার্মেন্টস খোলা থাকার কথা। তাই পরিবহনের প্রতিবন্ধকতা থাকার পরেও এরা ছুঁটছে ঢাকার দিকে।

রংপুরের আসাদুল ইসলাম জানান, তিনি নারায়নগঞ্জের একটি পোশাক কারখানায় চাকরী করেন। রংপুর থেকে তিনি কখনও রিক্সায়, কখনও টেম্পুতে আবার কখনও ট্রাকে করে ভেঙ্গে ভেঙ্গে এসেছেন সাভারের নবীনগর পর্যন্ত। এখান থেকে রিক্সা বা ট্রাকে করে সাভার বা গাবতলী যেতে অনেক ভাড়া চাইছে চালকরা। তাই পায়ে হেঁটে এসেছেন সাভার বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত।

ছবিটি ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের নবীনগর থেকে তোলা

আসাদুলের মত হাজার হাজার শ্রমিক এখন মহাসড়কে পায়ে হেঁটে কখনও বিভিন্ন পরিবহনে করে কষ্টকে মেনে নিয়েই ছুঁটছেন রাজধানীর দিকে। অনেকের মনে রয়েছে চাকরী চলে যাওয়ার ভয়।

সড়কে যানবাহন না চলায় এসব শ্রমিকরা পরেছেন বিপাকে। ট্রাক, পিকআপে করে তারা যাচ্ছেন কর্মস্থলে। আগামীকাল গার্মেন্টস খোলা তাই একসাথে ময়মনসিংহ, জামালপুর, নেত্রকোনা, শেরপুরের মানুষ ময়মনসিংহের পাটগুদাম মোড়ে আসছেন। সেখান থেকে বিভিন্ন পরিবহনে ঢাকার দিকে যাচ্ছেন।

গার্মেন্টস কর্মীরা বলছেন, আগামীকাল কর্মস্থলে উপস্থিত না হলে বেতন না পাবার শংকায় ঢাকামুখি হচ্ছেন।

করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে তৈরি পোশাক কারখানাগুলোয় দেয়া ছুটি শেষ হচ্ছে আজ। কর্মস্থলে ফিরতে শুরু করেছেন শ্রমিকরা। এমনটাই জানাচ্ছেন সকলে।

এদিকে আমাদের প্রতিনিধিরা জানান, গতকাল (শুক্রবার) সকাল থেকেই হাজার হাজার শ্রমিক সাভার, গাজীপুর ও রাজধানীতে ফিরতে শুরু করেন।

বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ নেতারা গার্মেন্টস খোলা রাখার সিদ্ধান্ত মালিকদের ওপরই ছেড়ে দিয়েছেন। তারা বলছেন, কারখানা খোলা রাখা বা বন্ধের বিষয়ে সরকারের বাধ্যবাধকতা নেই। কারখানাগুলোয় শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিতের ওপর জোর দিয়েছেন শ্রমিক নেতারা।

এদিকে, সাভার ও আশুলিয়ায় দায়িত্বরত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও পুলিশ সদস্যরা জানান, গার্মেন্টস শ্রমিকদের শ্রোতের কারনে সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্য নির্দেশ উপেক্ষিত হচ্ছে।

আজ সাভারে ও আশুলিয়ায় বিভিন্ন পরিবহন, দোকারপাট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট।

এদিকে এভাবে চলাচলে স্বাস্থ্য ঝুঁকি আছে বলে জানান স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

আরো পড়ুন-

Leave a Reply

VIDEO_EDITING_AD_CNI_NEWS
প্রধান সম্পাদক : তোফায়েল হোসেন তোফাসানি
বার্তা সম্পাদক : রোমানা রুমি, ৫৭, সুলতান মার্কেট (তয় তলা), দক্ষিনখান, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন ও ফ্যাক্স : ০২-৭৭৪১৯৭১, মোবাইল ফোন : ০১৭১১০৭০৯৩১
ই-মেইল : cninewsdesk24@gmail.com, cninews10@gmail.com
আঞ্চলিক অফিস : সি-১১/১৪, আমতলা মোড়, ছায়াবিথি, সোবহানবাগ, সাভার, ঢাকা।
Design & Developed BY PopularITLimited