,
প্রচ্ছদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | সারাদেশ | রাজনীতি | বিনোদন | খেলাধুলা | ফিচার | অপরাধ | অর্থনীতি | ধর্ম | তথ্য প্রযুক্তি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | স্বাস্থ্য | নারী ও শিশু | সাক্ষাতকার

রংপুর বিভাগে ১,৮২৫ জন হোম কোয়ারান্টিনে

রংপুর, ২৪ মার্চ, ২০২০ : রংপুর বিভাগে প্রিভেন্ট কমিউনিটি ট্রান্সমিশন অব করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) কর্তৃপক্ষের কঠোর তদারকিতে ১ হাজার ৮২৫ জন অভিবাসী হোম কোয়ারান্টিনে আছেন।
কোভিড-১৯ এর ফোকাল পার্সন ও রংপুর বিভাগের সহকারী পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. জেডএ সিদ্দিকী বাসসকে জানান, রংপুর বিভাগের আট জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় বিদেশ থেকে আগত ৩০৪ জন হোম কোয়ারান্টিনে রয়েছেন।
তিনি বলেন, রংপুর বিভাগে এখন পর্যন্ত মোট ২,১৮৪ জন অভিবাসীকে হোম কোয়ারান্টিনে রাখা হয়েছিল এবং তাদের মধ্যে ৩৫৯ জন ১৪ দিন হোম কোয়ারান্টিনে থাকার পরে করোনাভাইরাসের লক্ষণ না থাকায় তাদেরকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।
রংপুর বিভাগে বর্তমানে ১,৮২৫ জন অভিবাসী যারা হোম কোয়ারান্টিনে আছেন, তারা হলেন- রংপুরে ১৯১, পঞ্চগড়ে ৫৬২, নীলফামারীতে ১৬৮, লালমনিরহাটে ১৩১, কুড়িগ্রামে ১৭৬, ঠাকুরগাঁওয়ে ১৭৪, দিনাজপুরে ১৯৭ এবং গাইবান্ধায় ২২৬ জন।
ডা. সিদ্দিকী বলেন, রংপুর বিভাগ জুড়ে কোভিড- ১৯ আক্রান্তদের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (আরএমসিএইচ) আইসোলেশন ইউনিটে ১০ টি শয্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে এবং প্রতি উপজেলায় ৩ থেকে ৪টি শয্যা প্রস্তুত আছে।
এ ছাড়া প্রবাসী বাংলাদেশিসহ সন্দেহভাজন করোনাভাইরাস সংক্রমিত রোগীদের কোয়ারান্টিনের জন্য সদ্য নির্মিত নগরীর ১০০ শয্যাবিশিষ্ট রংপুর শিশু হাসপাতালসহ ২০০ শয্যা প্রস্তুত রাখা হয়েছে ।
তিনি জানান, ‘এর মধ্যে ভবিষ্যতে যে কোনও সময় প্রয়োজন হলে নগরীর ৩১ শয্যার হারাগাছ হাসপাতাল, তাজহাট বক্ষব্যাধি হাসপাতাল, প্রাথমিক শিক্ষক প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট এবং যুব উন্নয়ন বিভাগের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রকে করোনা ইউনিট হিসাবে ব্যবহার করা হবে।
রংপুর বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. মো. আমিন আহমেদ খান বাসসকে জানান, দুর্ভাগ্যজনক পরিস্থিতি এড়ানোর জন্য শতভাগ অভিবাসীর ১৪ দিনের কোয়ারান্টাইন নিশ্চিত করার জন্য তিনি জনসচেতনতার উপর জোর দিয়েছেন।
তিনি বলেন, সকল প্রবাসীর কোয়ারান্টাইন নিশ্চিত করার জন্য সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। সারাদেশের মতো রংপুর বিভাগের মোট আটটি জেলাতে কোভিড-১৯ এর বিস্তার প্রতিরোধ ব্যবস্থায় বিভিন্ন পদক্ষেপে সিভিল প্রশাসনের সঙ্গে ইতিমধ্যে সেনাবাহিনীর সদস্যরা সহায়তা করা শুরু করেছেন।
অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) মো. জাকির হোসেন জানান, রংপুর বিভাগে কোভিড ১৯ পরিস্থিতি মোকাবেলার পরিকল্পনা করতে সেনাবাহিনী আজ জেলা প্রশাসকগণ ও অন্যান্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন।
তিনি জানান, রংপুর বিভাগে সেনাবাহিনী প্রবাসী বাংলাদেশীদেও কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতকরণ, জনসমাবেশ বন্ধকরণ, কোয়ারান্টাইন ইউনিট ও আইসোলেশন ইউনিট এবং স্বাস্থসেবার সুযোগ সুবিধাগুলো তদারকি করবে।
রংপুরের জেলা প্রশাসক মো. আসিব আহসান জানান, আগামীকাল থেকে সিভিল প্রশাসনকে সহায়তা করে কোভিড ১৯-এর পরিস্থিতি মোকাবেলায় করণীয় নির্ধারণে সেনাবাহিনী আজ এখানে তার সম্মেলন কক্ষে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply

VIDEO_EDITING_AD_CNI_NEWS
প্রধান সম্পাদক : তোফায়েল হোসেন তোফাসানি
বার্তা সম্পাদক : রোমানা রুমি, ৫৭, সুলতান মার্কেট (তয় তলা), দক্ষিনখান, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন ও ফ্যাক্স : ০২-৭৭৪১৯৭১, মোবাইল ফোন : ০১৭১১০৭০৯৩১
ই-মেইল : cninewsdesk24@gmail.com, cninews10@gmail.com
আঞ্চলিক অফিস : সি-১১/১৪, আমতলা মোড়, ছায়াবিথি, সোবহানবাগ, সাভার, ঢাকা।
Design & Developed BY PopularITLimited