,
প্রচ্ছদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | সারাদেশ | রাজনীতি | বিনোদন | খেলাধুলা | ফিচার | অপরাধ | অর্থনীতি | ধর্ম | তথ্য প্রযুক্তি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | স্বাস্থ্য | নারী ও শিশু | সাক্ষাতকার

পটুয়াখালীতে ‘ম্যানেজ করে’ খাসজমিতে ইটভাটা নির্মাণ!

সিএনআই নিউজ : পটুয়াখালীর পাতাবুনিয়া নদীর তীরবর্তী বাহেরচর মৌজায় জেগে ওঠা চরে সরকারি খাসজমিতে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে অবৈধ ইটভাটা নির্মাণ করার অভিযোগ উঠেছে।

কার্ডহোল্ডার (বন্দোবস্ত প্রাপ্ত) ৭-৮ জন কৃষকের অন্তত ৫ একর জমি জবর-দখল করে স্কাভেটর মেশিন দিয়ে চলছে মাটিকাটার কাজ। গড়ে তোলা হচ্ছে সুউচ্চ মাটির স্তূপ।

অভিযোগ রয়েছে, প্রকাশ্য দিবালোকে এমন দখল-দারিত্বের ঘটনা ঘটলেও প্রশাসন রয়েছে নির্বিকার। টাকার প্রভাব খাটিয়ে থানা পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে দ্রুততার সঙ্গে ইটভাটা নির্মাণ করা হচ্ছে- যা দেখেও না দেখার ভান করছে প্রশাসন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার জেএল-৫৩ বাহেরচর মৌজায় সরকারি বন্দোবস্তের অন্তত ৫ একর খাসজমি জবরদখল করে অবৈধভাবে ইটভাটা তৈরির চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে পাতাবুনিয়া এলাকার মজিদ হাওলাদারের ছেলে ধনাঢ্য বাচ্চু হাওলাদার ও লাভলু শরীফ নামের দুই প্রভাবশালী ব্যক্তি।

তারা প্রশাসনকে ম্যানেজ করে পেশিশক্তির জোর খাঁটিয়ে ইটভাটাটি নির্মাণ শুরু করেছেন। প্রশাসনিক অনুমোদন ও পরিবেশগত ছাড়পত্র ছাড়াই তারা চরের বন্দোবস্তপ্রাপ্ত মালিকদের জমি জোরপূর্বক দখল করে স্কাভেটর দিয়ে মাটি কেটে সুবিশাল স্তূপ গড়ে তুলছেন।

কার্ডহোল্ডার বাহেরচর মৌজার বাসিন্দা মো. নাসির উদ্দিন হাওলাদারের ছেলে মো. জিয়াউর রহমান অভিযোগ করেন, বাচ্চু হাওলাদার ও লাভলু গায়ের জোরে আমাদের জমিজমা দখল করে নিয়েছে।

একই এলাকার বাসিন্দা মাওলানা আবদুল খালেকের ছেলে মো. কাইয়ুম অভিযোগ করে বলেন, চরে ইটভাটা নির্মাণে বাধা দিতে গেলে মেরে নদীতে ভাসিয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে বেড়াচ্ছেন ওই প্রভাবশালীরা।

নির্মাণাধীন ইটভাটার মালিক বাচ্চু হাওলাদার অবশ্য অবৈধ দখল-দারিত্বের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি তাদের রেকর্ডীয় জমিতে ইটভাটা নির্মাণ করছেন দাবি করে বলেন, প্রচলিত নিয়মের সব বিধিবিধান অনুসরণ করেই কাজ শুরু করা হয়েছে। প্রশাসনিক অনুমতি ও পরিবেশগত ছাড়পত্র নেয়া আছে। কার্ডহোল্ডারদের কোনো ধরনের হুমকি-ধমকি দেয়া হয়নি বলে দাবি করেছেন।

এ বিষয়ে দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মনিরুজ্জামান বলেন, এ উপজেলায় ভূমি জবরদখলের কোনো সুযোগ নেই। ম্যানেজ হওয়ার প্রশ্ন অবান্তর। আমার অগোচরে কোথাও এমন ঘটনা ঘটলে তা তদন্ত করে অভিযুক্তে বিরুদ্ধে কঠর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) আল-ইমরান বলেন, অবৈধ ইটভাটা নির্মাণের খবর পেয়ে সরেজমিন পরিদর্শন করে তাদের নিষেধ করা হয়েছে। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠর পদক্ষেপ নেয়া হবে।

Leave a Reply

VIDEO_EDITING_AD_CNI_NEWS
প্রধান সম্পাদক : তোফায়েল হোসেন তোফাসানি
বার্তা সম্পাদক : রোমানা রুমি, ৫৭, সুলতান মার্কেট (তয় তলা), দক্ষিনখান, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন ও ফ্যাক্স : ০২-৭৭৪১৯৭১, মোবাইল ফোন : ০১৭১১০৭০৯৩১
ই-মেইল : cninewsdesk24@gmail.com, cninews10@gmail.com
আঞ্চলিক অফিস : সি-১১/১৪, আমতলা মোড়, ছায়াবিথি, সোবহানবাগ, সাভার, ঢাকা।
Design & Developed BY PopularITLimited