,
প্রচ্ছদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | সারাদেশ | রাজনীতি | বিনোদন | খেলাধুলা | ফিচার | অপরাধ | অর্থনীতি | ধর্ম | তথ্য প্রযুক্তি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | স্বাস্থ্য | নারী ও শিশু | সাক্ষাতকার

পলাশবাড়ী চামড়া হাটে দাম ভালো হলেও আমদানি কম

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা : উত্তরের আট জেলার সবচেয়ে বড় চামড়ার হাট গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার কালীবাড়ি হাট। দেশের বিভিন্ন জেলার খুচরা বিক্রেতা ও পাইকাররা এ হাটে চামড়া বিক্রি করতে আসেন।

ঢাকা, খুলনা ও বরিশাল বিভাগসহ দেশের বিভিন্ন জেলার ট্যানারি মালিক ও পাইকাররা এখানে ট্রাক নিয়ে আসেন খুচরা ও পাইকারদের কাছ থেকে চামড়া কেনার জন্য। কিন্তু এবারের চিত্র ভিন্ন। চামড়া নিয়ে বাজারে বসে থাকলেও নেই কোনো ক্রেতা।

বুধবার (২১ আগস্ট) এখানে হাট বসলেও ছিল না কোনো ক্রেতা। বিগত বছরগুলোতে যে চামড়া ১ হাজার ২০০ থেকে দুই হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছিল এবার সেই চামড়ার দাম উঠেছে মাত্র ২৫০ থেকে ৪০০ টাকা। ছাগল আর খাসির চামড়া পাঁচ থেকে সর্বোচ্চ ৩০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। সরকারের তদারকির অভাব থাকায় চামড়ার এমন দরপতন হয়েছে। এ অবস্থায় চামড়া কিনে দেউলিয়া হয়ে জমি বিক্রি করে সংসার চালাচ্ছেন স্থানীয় খুচরা বিক্রেতা ও পাইকাররা।

পলাশবাড়ী উপজেলা খোদ্দ কোমরপুর ইউনিয়নের তালুক হরিদাস গ্রামের ৭৪ বছর বয়সী বাদশা ব্যাপারী। ১৯৭১ সালের পর থেকে গাইবান্ধার বিভিন্ন এলাকা থেকে কোরবানির পশুর চামড়া কিনে বিক্রি করে আসছেন।

কাঁচা চামড়ায় লবণ দিয়ে বাজারজাত করতে যা প্রয়োজন সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে চামড়া বিক্রি করে ভালোই আয় হতো তার। ওই আয়ে ভালোভাবেই চলছিল তার সংসার। কিন্তু ২০১৫ সালের পর থেকে তার চামড়ার ব্যবসায় ধস নেমেছে। এবারও জমি বিক্রি করে চামড়া কিনেছেন তিনি। চামড়ার ব্যবসা করতে গিয়ে গত তিন বছরে ছয় বিঘা জমি বিক্রি করেছেন। এবার জমি বিক্রির টাকায় চামড়া কিনে নিঃস্ব হয়ে পথে বসেছেন বাদশা ব্যাপারী।

বাদশা ব্যাপারী বলেন, ৪৮ বছর ধরে চামড়ার ব্যবসা করছি। চামড়ার ব্যবসার জন্য ছয় বিঘা জমি বিক্রি করেছি। এ বছর আশার আলো জ্বলবে বলে চামড়া কিনেছি। সরকার নির্ধারিত মূল্যেরও কম অর্থাৎ ৩০০ টাকা পিস চামড়া কিনে ২০০ টাকায় বিক্রি করতে পারছি না। আমার জীবনেও চামড়ার এমন দরপতন দেখিনি। ফকির হয়ে রাস্তায় বসে গেলাম আমি। সরকার যদি চামড়া ব্যবসায়ীদের পাশে না দাঁড়ায় তাহলে চামড়া ব্যবসা আলোর মুখ দেখবে না।

ঐতিহ্যবাহী ও উত্তরাঞ্চলের বৃহত্তম কালিবাড়ী চামড়াহাট ঘুরে দেখা যায়, ক্রেতার উপস্থিতি থাকলেও হাটে চামড়া এসেছে কম হয়েছে কম। তবে চামড়া দাম ভালো ছিল বলে জানিয়েছেন বেশ কয়েকজন বিক্রেতা। এজন্য আগামী বুধবার পরবর্তী হাটে আরও বেশি বেশি চামড়া আসবে বলে আশা করছে তারা।

কালিবাড়ী চামড়াহাট ঘুরে দেখা যায়, ঢাকা ও দেশের বিভিন্নস্থান থেকে আকিজ ট্যানারি, অ্যাপেক্স ট্যানারি, আরকে ট্যানারি, জহির লেদার, পান্না লেদার, ইউসুফ লেদারসহ ছোট- বড় ব্যবসায়িরা হাটে চামড়া কিনছেন।

জহির লেদারের প্রতিনিধি আহসান আহম্মেদ জানান, গরুর প্রতি পিস বড় চামড়া ৯শ থেকে এক হাজার টাকায় কিনছেন। ছোট আকারের চামড়া প্রতিপিস ৫শ থেকে ৬শ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া বাছাইয়ে বাদ পড়া প্রতিপিস চামড়া বিক্রি হচ্ছে ২শ থেকে ৩শ টাকায়।

কুড়িগ্রাম থেকে আসা চামড়া বিক্রেতা শহিদুল ইসলাম জানান, ৮শ পিস চামড়া নিয়ে হাটে এসেছি। প্রতিপিস চামড়া একহাজার টাকায় বিক্রি করেছি। তবে বাছাইয়ে কিছু চামড়া বাদ পড়েছে।

তিনি আরো জানান, সারাদেশে চামড়ার দাম না থাকায় খুব ভয়ে ছিলাম। প্রতিপিস চামড়া কেনার পর লবণসহ চামড়া থেকে মাংস ছাড়ানো, ধোয়া ও পরিবহন খরচ মিলে ২শ টাকা বাড়তি খরচ হয়েছে। চামড়ার দাম না পেলে পুঁজি হারিয়ে পথে বসতে হতো। তবে স্থানীয় ফড়িয়া- মৌসুমি ব্যবসায়িরা কোরবানির চামড়া কিনে দাম না পেয়ে পুঁজি হারিয়েছেন।

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট থেকে আসা চামড়া বিক্রেতা ইসমাইল বলেন, এবার দামে ধস নামায় হাটে চামড়া নিয়ে আসার সাহস পায়নি আমার মত অনেকে। কারণ চামড়া বিক্রি না করে বাড়ি ফিরলে খরচ আরো বেড়ে যায়। আগামী বুধবার চামড়া নিয়ে হাটে আসবো।

কালিবাড়ী হাট ইজারাদারের প্রতিনিধি হারুন মিয়া জানান, প্রতিবছর কোরবানি পরবর্তী সময়ে হাটে অর্ধলক্ষাধিক চামড়া আমদানি হয়ে থাকে। এবার বাজার হ-য-ব-র-ল হওয়ায় হাটে চামড়া এসেছে চার ভাগের একভাগ। তিনি আরও জানান, দাম তুলনামূলক ভালো যাওয়ায় আগামী বুধবার হাটে চামড়ার ভালো আমদানি হবে বলে আশা করা হচ্ছে।তবে সকালে চামড়ার দরপতন হলেও বেলা বাড়ার সঙে সঙে চামড়ার দাম দ্বিগুন বৃদ্ধি পায়।

Leave a Reply

VIDEO_EDITING_AD_CNI_NEWS
প্রধান সম্পাদক : তোফায়েল হোসেন তোফাসানি
বার্তা সম্পাদক : রোমানা রুমি, ৫৭, সুলতান মার্কেট (তয় তলা), দক্ষিনখান, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন ও ফ্যাক্স : ০২-৭৭৪১৯৭১, মোবাইল ফোন : ০১৭১১০৭০৯৩১
ই-মেইল : cninewsdesk24@gmail.com, cninews10@gmail.com
আঞ্চলিক অফিস : সি-১১/১৪, আমতলা মোড়, ছায়াবিথি, সোবহানবাগ, সাভার, ঢাকা।
Design & Developed BY PopularITLimited