,
প্রচ্ছদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | সারাদেশ | রাজনীতি | বিনোদন | খেলাধুলা | ফিচার | অপরাধ | অর্থনীতি | ধর্ম | তথ্য প্রযুক্তি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | স্বাস্থ্য | নারী ও শিশু | সাক্ষাতকার

সাভারে হলিটাচ মডেল স্কুল এন্ড কলেজের ৪১ জন শিক্ষার্থীর ভবিষ্যত অনিশ্চিত!

তোফায়েল হোসেন তোফাসানি :
ঢাকার সাভারের হেমায়েতপুরে অবস্থিত অনুমোদনহীন হলিটাচ মডেল স্কুল এন্ড কলেজের বিরুদ্ধে এইচএসসি প্রথম বর্ষে ভর্তি সংক্রান্ত অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে করে অনিশ্চিত হয়ে পরেছে প্রায় ৪১ জন শিক্ষার্থীর ভবিষ্যত। কলেজ কর্তৃপক্ষের স্বেচ্ছার বলি হয়ে এখন হতাশ হয়ে পরেছেন শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা।
প্রকাশ, হেমায়েতপুরের যাদুরচরে অবস্থিত এই হলিটাচ মডেল স্কুল এন্ড কলেজ। চারতলা নিজস্ব ভবনে মো: মনির হোসেন গড়ে তুলেছেন অনুমোদনহীন এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। সরকারী নিয়ম-নীতিকে উপেক্ষা করে নিম্মমানের শিক্ষা ব্যবস্থা এবং কোচিং বাণিজ্য চালু রয়েছে এখানে। বিদ্যালয় ও কলেজে সকল ছাত্র-ছাত্রীকে হাইস্কুল এবং কলেজের রেজিষ্ট্রেশনে ভর্তি করা হয়।



ই প্রতিষ্ঠানের কোন অনুমোদন নেই। দোসাইদ স্কুল এন্ড কলেজ থেকে পরীক্ষা দেয়া এবং ভর্তি করানো হয়। অন্যের অধীনে আমরা শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। কখাগুলো অকপটে স্বীকার করলেন কলেজের ভাই প্রিন্সিপ্যাল। সাভার উপজেলা নির্বাহী অফিসার পরভেজুর রহমান বলেন, বিষয়টি শিক্ষা অফিসার দেখে থাকেন। এ নিয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কি বলছে তা জানতে থাকুন আমাদের সাথে……..


ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, এবছর হলিটাচ মডেল স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ৪১ জন শিক্ষার্থী দোসাইদ এ কে হাইস্কুলের রেজিষ্ট্রেশনে এসএসসি পরীক্ষায় পাশ করে বিভিন্ন কলেজে ভর্তির জন্য চেষ্টা চালায়। অনলাইনে ভর্তি ফরম পুরণ করার সময় সকল শিক্ষার্থীরা ব্যর্থ হয়। দেখাযায় অজ্ঞাত কেউ সকলকে দোসাইদ স্কুল এন্ড কলেজে ভর্তি করে দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে হলিটাচ স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মনিরুল ইসলামের কাছে গেলে তিনি জানান, সকলকে হলিটাচ স্কুল এন্ড কলেজে ভর্তি করা হয়েছে। বিষয়টির প্রতিবাদ করেও লাভ হয়নি সাধারণ শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের। এদিকে, অন্য কলেজে ভর্তির সময় পেরিয়ে গেছে। এ কারণে অনিশ্চিত হয়ে পরেছে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যত। হলিটাচের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত ভর্তি, পরীক্ষার ফি ও রেজিস্ট্রেশন বাবদ টাকা হাতিয়ে নেয়া হচ্ছে বলে আরো অভিযোগ করেন অভিভাবকরা।
বিভিন্ন অভিভাবক ও শিক্ষাথীরা বিষয়টি গণমাধ্যমকে জানালে শিক্ষার্থীদের ঘরে ঘরে গিয়ে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা চালায় হলি টাচ কর্তৃপক্ষ।
এ ব্যাপারে কথা বলতে যাদুরচর হলিটাচ মডেল স্কুল এন্ড কলেজে গেলে অনেক অপেক্ষা করেও মো: মনির হোসেনকে পাওয়া যায়নি। এ সময় অধ্যক্ষের ফোনে কথা বলার প্রমান প্রমান পাওয়া গেলেও গণমাধ্যমের কারো ফোন তিনি রিসিভ করেন নি। কলেজের ভাইস প্রিন্সিপ্যাল মনোয়ার হোসেন সংবাদকর্মীদের দীর্ঘসময় অপেক্ষায় রাখার পরও আসেননি অধ্যক্ষ মনির।
কলেজের ভাইস প্রিন্সিপ্যাল মনোয়ার হোসেন জানান, হলিটাচ মডেল স্কুল এন্ড কলেজে প্রায় সাত শতাধিক শিক্ষার্থী রয়েছে। এই প্রতিষ্ঠানের কোন অনুমোদন নেই। দোসাইদ স্কুল এন্ড কলেজ থেকে পরীক্ষা দেয়া এবং ভর্তি করানো হয়। অন্যের অধীনে আমরা শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। এছারাও এসএসসি পরীক্ষা নজরুল ইসলাম কলেজ থেকে করানো হয় বলে তিনি জানান।
এ ব্যাপারে ভিডিও ও অডিওসহ একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রচার করা হবে। চোখ রাখুন…….(চলবে)।

Leave a Reply

VIDEO_EDITING_AD_CNI_NEWS
প্রধান সম্পাদক : তোফায়েল হোসেন তোফাসানি
বার্তা সম্পাদক : রোমানা রুমি, ৫৭, সুলতান মার্কেট (তয় তলা), দক্ষিনখান, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন ও ফ্যাক্স : ০২-৭৭৪১৯৭১, মোবাইল ফোন : ০১৭১১০৭০৯৩১
ই-মেইল : cninewsdesk24@gmail.com, cninews10@gmail.com
আঞ্চলিক অফিস : সি-১১/১৪, আমতলা মোড়, ছায়াবিথি, সোবহানবাগ, সাভার, ঢাকা।
Design & Developed BY PopularITLimited