,
প্রচ্ছদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | সারাদেশ | রাজনীতি | বিনোদন | খেলাধুলা | ফিচার | অপরাধ | অর্থনীতি | ধর্ম | তথ্য প্রযুক্তি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | স্বাস্থ্য | নারী ও শিশু | সাক্ষাতকার

গুজব ছড়িয়ে মানসিক ভারসাম্যহীনদের গণপিটুনী

মহানন্দ অধিকারী মিন্টু : খুলনা, যশোর ও সাতক্ষীরা জেলায় গুজব ছড়িয়ে একের পর
এক মানসিক ভারসাম্যহীনদের গণপিটুনী দেওয়া হচ্ছে। রোহিঙ্গা, ছেলেধরা ও বোরকাপার্টি আতঙ্কে অনেক স্থানে
রাত জেগে পাহারা দিচ্ছেন গ্রামবাসী। এমন আতঙ্কে অভিভাবকরা চিন্তিত হয়ে পড়েছেন শিশুদের নিয়ে। তবে
পুলিশ প্রশাসন জানিয়েছেন বিষয়টি নিছক গুজব। খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, গণপিটুনীর শিকার অধিকাংশই
অসুস্থ্য ও মানসিক বিকারগ্রস্থ।
গত কয়েক দিনে বোরকা বাহিনী ডাকাত কিংবা ছেলে ধরা আতঙ্কে খুলনার ডুমুরিয়া ও পাইকগাছা, সাতক্ষীরার
সদর, তালা, আশাশুনি ও কালিগঞ্জ এবং যশোর জেলার কেশবপুর ও মনিরামপুর উপজেলায় রোহিঙ্গা, ছেলেধরা,
বোরকাপার্টি ও ডাকাত সন্দেহে শুরু হয়েছে অসুস্থ্য ও মানসিক বিকারগ্রস্থদের (পাগল) গণধোলায় দেওয়া হচ্ছে।
কোনো কোনো জায়গায় গণপিটুনি দিয়ে ওই সব অসুস্থ ও মানসিক বিকারগ্রস্থদের পুলিশ প্রশাসনের নিকট
হস্তান্ত করা হচ্ছে। গণপিটুনির খবর পেলে তাৎক্ষণিক পুলিশও কাজ ফেলে ছুটছে রোহিঙ্গার সন্ধানে। গুজবের বিষয়
পুলিশ প্রসানের পক্ষ থেকে সতর্কতা জারী করে মাইকেও প্রচার চালানো হচ্ছে। মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) দুপুরে খুলনার
পাইকগাছা উপজেলার কপিলমুনি ইউনিয়নে কাশিমনগর বটতলা নামক স্থানে স্থানীয় কয়েক যুবক অগন্তুক এক
শারীরীক ও মানসিক ভারসাম্যহীনকে গণপিটুনী দিয়ে আহত করে ফেলে রাখে। মূমুর্ষু অবস্থায় স্থানীয়রা রাত ৯টার
দিকে তাকে উদ্ধার করে কপিলমুনি সরকারি হাসপাতালে আনেন। জানাযায়, পাগলটি তার নাম পরিচয় কিছুই বলতে
পারেনি। একই দিন সন্ধ্যায় উপজেলায় সিলেমানপুর গ্রামে এলাকাবাসী ছেলে ধরা সন্দেহে এক মহিলাকে
গণপিটুনী দিয়ে গুরুতর আহত করেছে। থানাপুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে উপজেলা
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জানিয়েছে। গুজব এর বিষয় নিয়ে
স্থানীয় প্রশাসনও বিষিয়ে উঠেছে।
থানার এস আই নাজমুল হক জানান, এ ধরণের মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলার দ্বারা কোনো অপরাধমূলক কাজ করা
সম্ভব নয়। আমি তখন নামাজে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি এলাকাবাসী ঐ মহিলাকে
গণপিটুনী দিচ্ছে। আমরা যদি সময়মত না পৌঁছাতাম তাহলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হতো। জানাগেছে মান
মানসিক ভারসাম্যহীন ঐ মহিলা উপজেলার হরিদাশকাটী গ্রামে জনৈক ব্যক্তির বাড়ীতে গত ৪ বছর ধরে বসবাস
করছেন। যুবলীগনেতা মো. আব্দুল গফফার মোড়ল জানান, এ ধরণের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে মর্মান্তিক দৃশ্য দেখে
আমি হতবাক হয়েছি।
গত রোববার (৫এপ্রিল) রাতে পাইকগাছা উপজেলার কপিলমুনি থেকে কামরান (৪০) নামে এক যুবককে ধরে পুলিশে
সোপর্দ করেছে। তার বাড়ী সিলেটে বলে সে জানায়। পরের দিন সোমবার রাতে একই উপজেলার গদাইপুর গ্রাম থেকে
৬০ বছরের এক বৃদ্ধ ও গোপালপুর মানিকতলা থেকে আনুমানিক ৫৫ বছরের আরো এক ব্যক্তিকে ধরে জনগণ পুলিশে
দিয়েছে। পুলিশের দাবি আটক ব্যক্তিরা মানসিক ভারসাম্যহীন।
এ বিষয়ে একাধিক ব্যক্তি জানান, শুধু মাত্র গুজবে কান দিয়ে কিংবা অপপ্রচারে মত্ত হয়ে সাধারণ এলাকাবাসীদের
বেপরোয়া করে তুলেছে একটি মহল। কেউ কেউ বলেন এ ধরনের গুজবের প্রথম সূত্রপাত হয় খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার
চুকনগর থেকে।
পাইকগাছা থানা ওসি এমদাদুল হক শেখ জানান, একটি কুচক্রী মহল গুজব ছড়িয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করার
চেষ্টা করছে। অপ্রচারকারী কুচক্রী মহলে বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে প্রশাসন কাজ শুরু করছেন। এ পর্যন্ত যাদেরকে
গণপিটুনি দেওয়া হয়েছে সকলে চিহ্নিত মানসিক ভারসাম্যহীন (পাগল)। যা শোনা যাচ্ছে, সবই গুজব, এতে
আতংকিত হওয়ার কিছু নেই। মানসিক ভারসাম্যহীন মহিলাকে মারপিটের ঘটনায় মামলা হয়েছে। তিনি আরও
জানান, বোরকা পার্টি বলে আমরা এখনও এর কোনো অস্তিত্ব খুঁজে পায়নি। এটি নিছক একটি গুজব। আমাদের
অনুরোধ কোথাও কোনো অস্বাভাবিক কোনো কিছু দেখলে সাথে সাথে থানা পুলিশকে খবর দিন। দয়া করে কেউ
আইন হাতে তুলে নিবেন না।

Leave a Reply

VIDEO_EDITING_AD_CNI_NEWS
প্রধান সম্পাদক : তোফায়েল হোসেন তোফাসানি
বার্তা সম্পাদক : রোমানা রুমি, ৫৭, সুলতান মার্কেট (তয় তলা), দক্ষিনখান, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন ও ফ্যাক্স : ০২-৭৭৪১৯৭১, মোবাইল ফোন : ০১৭১১০৭০৯৩১
ই-মেইল : cninewsdesk24@gmail.com, cninews10@gmail.com
আঞ্চলিক অফিস : সি-১১/১৪, আমতলা মোড়, ছায়াবিথি, সোবহানবাগ, সাভার, ঢাকা।
Design & Developed BY PopularITLimited