,
প্রচ্ছদ | জাতীয় | আন্তর্জাতিক | সারাদেশ | রাজনীতি | বিনোদন | খেলাধুলা | ফিচার | অপরাধ | অর্থনীতি | ধর্ম | তথ্য প্রযুক্তি | লাইফ স্টাইল | শিক্ষাঙ্গন | স্বাস্থ্য | নারী ও শিশু | সাক্ষাতকার

ওসি ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সহ ৯ জনের বিরুদ্ধে শোকজ

টি এম কামাল : সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের বিচারক কিশোর দত্ত বুধবার দুপুরে একটি মামলায় শাহজাদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খাজা গোলাম কিবরিয়া ও শাহজাদপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল কাদের বিশ^াস সহ ৯ জন আসামীকে শোকজ করেছেন। তাদের বিরুদ্ধে কেনো আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে আগামী ৭ দিনের মধ্যে কারণ দর্শাতে বলেছেন আদালত। এ মামলার অপর আসামীরা হলেন, ওই মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মওলানা ইদ্রিস আলী, মাদ্রাসা সভাপতি আব্দুল্লাহ হিলকাফি হিরা, ইসমাইল হোসেন, আজাদ আলী, জামাত আলী, মওলানা শাহ আলম ও মোছা ঃ মধুমালা খাতুন।
উপজেলার রূপবাটি ইউনিয়নের করশালিকা ফাজিল রহমানিয়া মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগে নির্বচনে পরাজিত ৫ জন বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন। এরা হলেন, আবু বক্কার, জহুরুল ইসলাম, ফজলার প্রামাণিক, জহুরুল ইসলাম ও মোছা ঃ ছারা খাতুন।

এ মামলার ১নং বাদী আবু বক্কার জানান, ২০১৮ সালের ২০ অক্টোবর এ মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নানা অনিয়ম ও কারচুপির মাধ্যমে আসামীগণ তাদের বিজয় ছিনিয়ে নেয়। ওই দিনই আমরা ৫ জন তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করি। এটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসক শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে দায়ীত্ব দেন। তিনি শাহজাদপুর উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আজাহার আলী ও পল্লি উন্নয়ন কর্মকর্তা কাওসার আলীকে নিয়ে ২ সদস্য বিশিষ্ট একটি দতন্ত কমিটি গঠন করে তাদের তদন্তের দায়ীত্ব দেন। তারা সরেজমিন মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে গিয়ে ভোটার, এলাকাবাসি, শিক্ষক, অভিভাবক সহ সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে আবেদনের সত্যতা পান। এ মর্মে তারা প্রতিবেদন দাখিল করলে ওই প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ২০১৮ ইং সালের ৪ নভেম্বর শাহজাদপুর সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের এ মামলা দায়ের করেন। এ আদালতের বিচারক কিশোর দত্ত মামলাটি গ্রহণ করে বিবাদীদের বিরুদ্ধে কেনো আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না মর্মে এ শোকজ করেন।

এ ব্যাপারে শাহজাদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খাজা গোলাম কিবরিয়া ও শাহজাদপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল কাদের বিশ^াস ও মাদ্রাসা অধ্যক্ষ মওলানা ইদ্রিস আলী বলেন, এ বিষয়ে এখনও কিছু জানি না। আদালত থেকে এখনও কোন কাগজপত্র হাতে পাইনি। পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব। বাদী পক্ষের আইনজীবি এ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন ও আদালতের পেশকার প্রদ্যুত ধর এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। #

Leave a Reply

VIDEO_EDITING_AD_CNI_NEWS
প্রধান সম্পাদক : তোফায়েল হোসেন তোফাসানি
বার্তা সম্পাদক : রোমানা রুমি, ৫৭, সুলতান মার্কেট (তয় তলা), দক্ষিনখান, উত্তরা, ঢাকা।
ফোন ও ফ্যাক্স : ০২-৭৭৪১৯৭১, মোবাইল ফোন : ০১৭১১০৭০৯৩১
ই-মেইল : cninewsdesk24@gmail.com, cninews10@gmail.com
আঞ্চলিক অফিস : সি-১১/১৪, আমতলা মোড়, ছায়াবিথি, সোবহানবাগ, সাভার, ঢাকা।
Design & Developed BY PopularITLimited